عن أنس بن مالك رضي الله عنه قال سمعت رسول الله صلى الله عليه وسلم يقول: «من أحبّ أن يُبْسَطَ عليه في رزقه، وأن يُنْسَأَ له في أَثَرِهِ؛ فَلْيَصِلْ رحمه».
[صحيح] - [متفق عليه]
المزيــد ...

আনাস ইবন মালেক রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছি, তিনি বলেন, “যে ব্যক্তি ভালোবাসে যে, তার ওপর রিযিক প্রশস্ত করা হোক এবং তার বয়সে বরকত হোক তাহলে সে যেন আত্মীয়তার সম্পর্ক বঝায় রাখে।”
সহীহ - মুত্তাফাকুন ‘আলাইহি (বুখারী ও মুসলিম)।

ব্যাখ্যা

হাদীসটিতে আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখার ওপর গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। আর আল্লাহর সন্তুষ্টি হাসিলের সঙ্গে তার কিছু উপকারিতার বর্ণনাও রয়েছে। কারণ, এটি দুনিয়াতেই বান্দার নিকট সবচেয়ে প্রিয় বস্তু হাসিল হওয়ার কারণ। আর এটি রিযিক প্রশস্ত হওয়া এবং হায়াত দীর্য হওয়ার কারণ। আর আল্লাহর বাণী, “যখন সময় এসে যায় তখন আল্লাহ কাউকে এক মুহূর্তও দেরি করেন না।" এর অর্থ হলো, যে সব কারণগুলো অবলম্বন করলে হায়াত দীর্য করা হয়, সে পর্যন্ত পৌঁছানো হবে। যদি কারো বয়স নির্ধারণ করা হলো পঞ্চাশ বছর, এখন যদি আত্মীয়তা সম্পর্ক বজায় রাখে তখন তার বয়স হবে ষাট বছর। সুতরাং যখন ষাট হবে তখন তাকে আর সুযোগ দেয়া হবে না। এগুলো সবই আল্লাহ শুরুতেই জানেন। কিন্তু কতক ফিরিশতাদের নিকট তা গোপন থাকে। আর আল্লাহ বাণী: “আল্লাহ যা চান মুছে ফেলেন এবং যা চান তা বাকী রাখেন“ অর্থাৎ ফিরিশতাদের সহীফা হতে। তার নিকট রয়েছে উম্মুল কিতাব। যার মধ্যে সবকিছুর বিস্তারিত লিখা হয়েছে। তার থেকে কোন কিছুই পরিবর্তন করা হবে না।

অনুবাদ: ইংরেজি ফরাসি স্পানিস তার্কিশ উর্দু ইন্দোনেশিয়ান বসনিয়ান রুশিয়ান চাইনিজ ফার্সি ইন্ডিয়ান সিংহলী উইঘুর কুর্দি পর্তুগীজ মালয়ালাম তেলেগু সুওয়াহিলি তামিল বার্মিজ জার্মানি জাপানিজ
অনুবাদ প্রদর্শন

ফায়দাসমূহ

  1. আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখার ওপর উৎসাহ প্রদান।
  2. ব্যক্তির রিযিক প্রশস্ত হওয়া এবং বয়স বৃদ্ধি করার ক্ষেত্রে আত্মীয়তার সম্পর্ক বজায় রাখা শক্তিশালী উপকরণ।
  3. যেমন কর্ম তেমন ফল। যে ব্যক্তি ভালো কর্ম ও অনুগ্রহের সাথে আত্মীয়তার সম্পর্ক বঝায় রাখে আল্লাহ তাকে হায়াত ও রিযিক দিয়ে তার সাথে সু সম্পর্ক বঝায় রাখবেন।
  4. উপকরণ প্রমাণিত হওয়া। কারণ, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম একটি উপকরণ সাব্যস্ত করেছেন। আর তা হলো আত্মীয়তা। আর একটি মুসাব্বাব নির্ধারণ করেছেন, আর তা হলো, হায়াত দীর্ঘ হওয়া এবং রিযিক প্রশস্ত হওয়া।
আরো