শ্রেণিবিন্যাস: ফযীলত ও শিষ্ঠাচার .

عن عائشة رضي الله عنها مرفوعاً: «لا تسبوا الأموات؛ فإنهم قد أفضوا إلى ما قدموا».
[صحيح] - [رواه البخاري]
المزيــد ...

‘আয়িশা রাদিয়াল্লাহু ‘আনহা থেকে মারফূ‘ সূত্রে বর্ণিত, “তোমরা মৃতদের গালি দিও না; কারণ, তারা স্বীয় কর্মফল পর্যন্ত পৌঁছে গেছে।”
সহীহ - এটি বুখারী বর্ণনা করেছেন।

ব্যাখ্যা

হাদীসটি মৃত ব্যক্তিকে গাল-মন্দ করা ও তাদের দোষ চর্চা নিষিদ্ধ হওয়ার প্রমাণ। আর এটি খারাপ স্বভাবের একটি। নিষিদ্ধ হওয়ার হিকমত রাসূলের বাণীর অবশিষ্ট অংশে: “কারণ, তারা স্বীয় কর্মফল পর্যন্ত পৌঁছে গেছে। অর্থাৎ, তারা তাদের স্বীয় কর্ম খারাপ হোক বা ভালো হোক সে পর্যন্ত পৌঁছে গেছেন। আর গাল দেওয়া তাদের কাছে পৌঁছবে না, বরং তা জীবিতদের কষ্ট দেয়।

অনুবাদ: ইংরেজি ফরাসি স্পানিস তার্কিশ উর্দু ইন্দোনেশিয়ান বসনিয়ান রুশিয়ান চাইনিজ ফার্সি তাগালোগ ইন্ডিয়ান ভিয়েতনামী সিংহলী কুর্দি হাউসা পর্তুগীজ মালয়ালাম তেলেগু সুওয়াহিলি তামিল বার্মিজ জার্মানি জাপানিজ
অনুবাদ প্রদর্শন

ফায়দাসমূহ

  1. হাদীসটি দ্বারা প্রমাণিত হয় যে, মৃতদের গাল দেয়া হারাম। আর এটির ব্যাপকতা প্রমাণ করে যে, চাই তারা মুসলিম হোক বা কাফের।
  2. এ থেকে বাদ দেওয়া হয় তাদেরকে যাদের দোষ আলোচনা করাতে কোনো উপকার আছে।
  3. নিষেধ করার হিকমাত হাদীসটিতে এসেছে, আর তা হলো তারা ভালো বা মন্দ যা করেছেন তার পরিণতির দিকে তারা পৌঁছে গেছেন। তাই তাদের গাল দেয়াতে কোনো লাভ নেই। এছাড়াও এতে রয়েছে তার জীবিত আত্মীয়দের কষ্ট দেওয়া।
  4. যাতে কোনো উপকার নেই তা বলা কোনো মানুষের জন্য উচিত নয়।
আরো