عن أبي هريرة -رضي الله عنه- مرفوعاً: «الفِطرة خَمْسٌ: الخِتَان, والاسْتِحدَاد, وقَصُّ الشَّارِب, وتَقلِيمُ الأَظفَارِ, ونَتْفُ الإِبِط».
[صحيح.] - [متفق عليه.]
المزيــد ...

আবূ হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু থেকে মারফূ‘ হিসেবে বর্ণিত: “প্রকৃতিগত আচরণ পাঁচটি: খাতনা করা; লজ্জাস্থানের লোম কেটে পরিষ্কার করা; নখ কাটা; বগলের লোম ছিঁড়া ও গোঁফ ছেঁটে ফেলা।”
[সহীহ] - [মুত্তাফাকুন ‘আলাইহি (বুখারী ও মুসলিম)।]

ব্যাখ্যা

আবূ হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু বলেন, তিনি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বলতে শুনেছেন: দীন ইসলামের পাঁচটি স্বভাব রয়েছে, যার ওপর আল্লাহ মানুষকে সৃষ্টি করেছেন। যে ব্যক্তি এ পাঁচটি চরিত্র বাস্তবায়ন করল সে দীনের মহান স্বভাবগুলো বাস্তবায়ন করল। এ হাদীসটিতে উল্লিখিত পাঁচটি চরিত্র পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতারই অংশ যার জন্য ইসলামের আগমন। প্রথম: লিঙ্গের সামনের অংশের চামড়া কেটে ফেলা যা অবশিষ্ট থাকা দ্বারা নাপাকী এবং ময়লা একত্র হওয়ার সম্ভাবনা থাকার ফলে তাতে রোগ জীবাণু দেখা দিতে পারে। দ্বিতীয়: লজ্জাস্থানের আশ পাশে চুল কর্তন করা। চাই তা সামনের রাস্তার হোক বা পিছনের রাস্তার। কারণ, এগুলোকে জায়গা মতো রেখে দেওয়া দ্বারা তা নাপাকীর সাথে সংমিশ্রণ হওয়ার সম্ভাবনা রাখে এবং অনেক সময় তা শরঈ পবিত্রতা অর্জনে বিঘ্ন সৃষ্টি করে। তৃতীয়: গোফ ছেঁটে ফেলা যা লম্বা করাতে আকৃতির পরিবর্তন হয় এবং তার পানের পর যে পান করবে সে তা অপছন্দ করবে। অধিকন্তু তা মাজুসীদের (মূর্তিপুজকরে) সাথে সাদৃস অবলম্বন করা। চার: নখ কাটা। নখ না কাটলে তাতে ময়ল একত্র হয় এবং তা খাদ্যের সাথে মিশে যায় এবং রোগ জীবাণু সৃষ্টি হয়। এ ছাড়াও ফাঁকা জায়গা ডেকে থাকার কারণে অনেক সময় পরিপূর্ণ পবিত্রতা অর্জন বাধাগ্রস্থ হয়। পঞ্চম: বোগলের লোম উপড়ে ফেলা। যা অবশিষ্ট থাকাতে দুর্গন্ধ ছড়ানোর কারণ হয়।

অনুবাদ: ইংরেজি ফরাসি স্পানিস তার্কিশ উর্দু ইন্দোনেশিয়ান বসনিয়ান রুশিয়ান চাইনিজ ফার্সি তাগালোগ ইন্ডিয়ান উইঘুর কুর্দি হাউসা পর্তুগীজ মালয়ালাম তেলেগু সুওয়াহিলি
অনুবাদ প্রদর্শন
1: আল্লাহ প্রদত্ত স্বভাব যাবতীয় কল্যাণের প্রতি আহ্বান করে এবং অকল্যাণ থেকে দূরে রাখে।
2: স্বভাবজাত সুন্নাত পাঁচটি। তবে এগুলো উক্ত পাঁচ সংখ্যাতে সীমাবদ্ধ নয়। কারণ হলো, সংখ্যার প্রতিপাদ্য বিষয় কখনো দলীল হয় না। সহীহ মুসলিমে এসেছে দশটি জিনিস ফিতরাত থেকে।
3: এ আমলগুলোর প্রতি যত্মবান হওয়া এবং এগুলোর ক্ষেত্রে কোনো প্রকার অলসতা না করা।
4: এ পাঁচটি উত্তম স্বভাব আল্লাহর ফিতরাত, যেগুলোকে তিনি ভালোবাসেন এবং যার প্রতি তিনি আদেশ দেন। তিনি রুচিশীল ব্যক্তিদের এর ওপর সৃষ্টি করেছেন এবং এর বিপরীত স্বভাব থেকে দূরে রেখেছেন।
5: ইসলাম সৌন্দর্য, পরিপূর্ণতা ও পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা নিয়েই আগমন করেছে।
6: এ স্বভাবগুলোতে দীনি ও দুনিয়াবী উভয় জগতের উপকারিতা রয়েছে, যেমন: সুন্দর আকৃতি, শরীর পরিচ্ছন্ন করা, পবিত্রতার সতর্কতা অবলম্বন করা এবং কাফেরদের নিদর্শনের বিরোধিতা করা ও আল্লাহর আদেশের বাস্তবায়ন করা।
7: বর্তমানে কতক যুবক-যুবতী নখ লম্বা করা এবং কতক ছেলে তাদের গোঁফকে বড় করার যে কাজ করছে সেগুলো শরী‘আতের দৃষ্টিতে নিষিদ্ধ এবং মানব স্বভাব ও রুচির সম্পূর্ণ পরিপন্থী। মনে রাখতে হবে, ইসলাম কেবল সুন্দর বস্তুর নির্দেশ দেয় এবং যাবতীয় খারাপ কর্ম হতে মানুষকে নিষেধ করে। কিন্তু পশ্চিমাদের অন্ধ অনুকরণ বাস্তবতাক পালটে দিয়েছে, ফলে রুচি, বিবেক ও শরীয়তের দৃষ্টিতে যা খারাপ তাকে ভালো করেছে এবং যা ভালো তার থেকে দূরে সরিয়েছে।