عن ابن مسعود -رضي الله عنه- قال: قال رسول الله -صلى الله عليه وسلم-: «مَنْ قَرَأ حَرْفاً مِنْ كِتاب الله فَلَهُ حَسَنَة، والحَسَنَة بِعَشْرِ أمْثَالِها، لا أقول: ألم حَرفٌ، ولكِنْ: ألِفٌ حَرْفٌ، ولاَمٌ حَرْفٌ، ومِيمٌ حَرْفٌ».
[صحيح.] - [رواه الترمذي.]
المزيــد ...

আব্দুল্লাহ ইবন মাসউদ রাদিয়াল্লাহু আনহু হতে বর্ণিত, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, “আল্লাহ তা‘আলার কিতাবের একটি হরফ যে ব্যক্তি পাঠ করবে তার জন্য এর সাওয়াব আছে। আর সাওয়াব হয় তার দশ গুণ হিসেবে। আমি বলি না যে, ‘আলিফ-লাম-মীম’ একটি হরফ, বরং আলিফ একটি হরফ, লাম একটি হরফ এবং মীম একটি হরফ।”
-

ব্যাখ্যা

এ হাদীসটিতে আব্দুল্লাহ ইবন মাসউদ রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন যে, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম সংবাদ দেন, যে কোন মুসলিম ব্যক্তি আল্লাহর কিতাবের একটি হরফ তিলাওয়াত করে, তার জন্য একটি হরফের বিনিময়ে রয়েছে দশটি নেকি। আর তাঁর বাণী, “আমি বলি না যে, আলিফ লাম মীম এক হরফ” অর্থাৎ তিন হরফের সমষ্টি এক হরফ। বরং আলিফ একটি হরফ, লাম একটি হরফ এবং মীম একটি হরফ। সুতরাং এ হরফ পাঠকারীকে ত্রিশটি নেকী দেওয়া হবে। এটি একটি বড় নি‘আমত এবং বড় সাওয়াব। সুতরাং মানুষের জন্য উচিত হলো সে বেশি বেশি করে কুরআন তিলাওয়াত করবে।

অনুবাদ: ইংরেজি ফরাসি তার্কিশ উর্দু ইন্দোনেশিয়ান বসনিয়ান রুশিয়ান চাইনিজ ফার্সি ইন্ডিয়ান
অনুবাদ প্রদর্শন
1: কুরআন তিলাওয়াতের ওপর উৎসাহ প্রদান।
2: বাক্যের প্রতিটি অক্ষরের মোকাবিলায় যা একজন তিলাওয়াতকারী পাঠ করে বহুগণ বৃদ্ধি করে সাওয়াব প্রদান করা হয়।
3: অক্ষরের অর্থ বর্ণনা। তার মাঝে এবং বাক্যের মাঝে প্রার্থক্য নিধারণ করা।
4: আল্লাহর রহমাত ও অনুগ্রহের প্রসস্থতার বর্ণনা। তাই তিনি তার বান্দাদের জন্য দয়া ও অনুগ্রহ করে সাওয়াবকে বাড়িয়ে দিয়েছেন।
5: এ কথা সাব্যস্ত করা যে আল্লাহর বাণী আওয়াজ ও হরফ দ্বারা হয়।