عن أبي سعيد وأبي هريرة -رضي الله عنهما- مرفوعاً: «ما يُصيب المسلم من نَصب، ولا وصَب، ولا هَمِّ، ولا حَزن، ولا أَذى، ولا غَمِّ، حتى الشوكة يُشاكها إلا كفر الله بها من خطاياه».
[صحيح] - [متفق عليه]
المزيــد ...

আবূ সা‘ঈদ খুদরী ও আবূ হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু ‘আনহুমা থেকে মারফু‘ হিসেবে বর্ণিত, রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেছেন, “মুসলিম ব্যক্তির ওপর যে সকল যাতনা, রোগ-ব্যাধি, উদ্বেগ-উৎকন্ঠা, দুশ্চিন্তা, কষ্ট ও পেরেশানী আপতিত হয়, এমনকি যে কাঁটা তার দেহে বিদ্ধ হয়, এ সবের দ্বারা আল্লাহ তার গুনাহসমূহ ক্ষমা করে দেন।”
সহীহ - মুত্তাফাকুন ‘আলাইহি (বুখারী ও মুসলিম)।

ব্যাখ্যা

হাদীসের ব্যাখ্যা: মুসলিম ব্যক্তির ওপর যেসব রোগ-ব্যাধি, উদ্বেগ-উৎকন্ঠা, দুশ্চিন্তা, বিপদ-আপদ, বালা-মুসীবত, কষ্ট, ভয়-ভীতি, অধৈর্য ও পেরেশানী আপতিত হয়, এসব তার গুনাহের কাফ্ফারা ও পাপসমূহ মোচনকারী হয়ে যায়। আর মানুষ যদি এসবের সাথে ধৈর্য ও সাওয়াবের আশাকে যুক্ত করে, তাহলে সে এর সঙ্গে সাওয়াবও প্রাপ্ত হবে। অতএব মুসিবত দু’ধরণের: একপ্রকার: মানুষ যখন মুসীবতে পতিত হয় তখন যদি মুসীবতে ধৈর্যধারণের সাওয়াব স্মরণ করে এবং এ মুসীবতের দ্বারা সাওয়াব প্রত্যাশা করে তাহলে সে দু’টি প্রতিদান পাবে, একটি গুনাহ মাফ এবং অন্যটি সাওয়াব বৃদ্ধি। আর দ্বিতীয় প্রকার হলো: যখন সে সাওয়াবের আশা থেকে গাফেল থাকে এবং বিপদে তার অন্তর সংকীর্ণ হয়ে যায় ও এতে তার অসন্তুষ্টি বা বিরক্তি সৃষ্টি হয়। আর সে আল্লাহর কাছে পুরস্কার ও সাওয়াবের নিয়ত করা থেকে বে-খবর থাকে, তাহলে এ বিপদ তার গুনাহের কাফ্ফারা হবে। কেননা মুমিন সর্বাবস্থায় লাভবান। হয়ত সাওয়াব লাভ ব্যতীত গুনাহের কাফ্ফারা হবে; কেননা সে কিছুই নিয়ত করে নি, সে ধৈর্যধারণ করেনি এবং সাওয়াব প্রাপ্তির প্রত্যাশাও করে নি। নতুবা সে গুনাহ মাফ ও সাওয়াব লাভ দু’ভাবেই লাভবান হবে যা ইতোপূর্বে আলোচনা করা হয়েছে। এ কারণেই মানুষের উচিৎ বিপদাপদে পতিত হলে যদিও সামান্য কাঁটা দ্বারা হয় তাতে উক্ত মুসীবতে ধৈর্য ধারণ করা ও সাওয়াবের নিয়াত করা; যাতে সে সাওয়াব প্রাপ্ত হয় এবং গুনাহ মাফ পায়। আর এটি মহান আল্লাহর দয়া ও অনুগ্রহ ও বান্দার প্রতি বিশেষ নি‘আমত যে, তিনি মুমিনকে পরীক্ষা করেন অতঃপর তাকে উক্ত পরীক্ষায় সাওয়াব দান করেন বা তার গুনাহ মাফ করেন। এখানে বিশেষভাবে উল্লেখ্য যে, গুনাহ মাফ বলতে সগীরা গুনাহকে বুঝানো হয়েছে, কবীরা গুনাহ নয়; কারণ তা খাঁটি তাওবা ব্যতীত মাফ হয় না।

অনুবাদ: ইংরেজি ফরাসি স্পানিস তার্কিশ উর্দু ইন্দোনেশিয়ান বসনিয়ান রুশিয়ান চাইনিজ ফার্সি তাগালোগ ইন্ডিয়ান ভিয়েতনামী সিংহলী উইঘুর কুর্দি হাউসা পর্তুগীজ মালয়ালাম তেলেগু সুওয়াহিলি তামিল বার্মিজ
অনুবাদ প্রদর্শন

ফায়দাসমূহ

  1. রোগ ব্যধি এবং অন্যান্য যে সব পরীক্ষার সম্মূখীন মুমিন হয়ে থাকে তা তাকে গুনাহসমূহ থেকে পবিত্র করে যদিও তা কম হয়।
  2. এতে মুসলিমদের জন্য রয়েছে বিশাল সু-সংবাদ। কারণ, যে কোনো মুসলিম এ সব মুসিবতে আক্রান্ত হয়, তাকে এ দ্বারা সাওয়াব প্রদান করা হয়।
  3. এ বলা হয়েছে যে, এ সব বিষয়াবলীর কারণে মর্যাদা বৃদ্ধি করা হয় এবং নেকীসমূহ বাড়িয়ে দেওয়া হয়।
  4. গুনাহ মাপ কতক গুনাহের মধ্যে সীমাবদ্ধ। আর তা হলো ছোট গুনাহ। আর বড় গুনাহের জন্য প্রয়োজন তাওবাহ।
আরো