عن أبي هريرة -رضي الله عنه- عن النبي صلى الله عليه وسلم أنه قال: «من خرج من الطاعة، وفارق الجماعة فمات، مات مِيتَةً جاهلية، ومن قاتل تحت راية عِمِّيَّة يغضب لِعَصَبَة، أو يدعو إلى عَصَبَة، أو ينصر عَصَبَة، فقتل، فَقِتْلَة جاهلية، ومن خرج على أمتي، يضرب برها وفاجرها، ولا يَتَحَاشَى من مؤمنها، ولا يفي لذي عهد عهده، فليس مني ولست منه»،
[صحيح.] - [رواه مسلم.]
المزيــد ...

আবূ হুরায়রাহ রাদিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন, “যে ব্যক্তি আনুগত্যতা থেকে বের হয়ে গেল এবং জামাত থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেল এবং এ অবস্থায় মারা গেল সে জাহিলি মৃত্যু বরণ করল। যে ব্যক্তি কোন অন্ধ ঝান্ডার অধীনে জাতিগত কারণে যুদ্ধ অথবা জাতির দিকে আহবান করে অথবা জাতিকে সাহায্য করে নিহত হয়, তার মৃত্যু জাহিলি মৃত্যু। আর যে ব্যক্তি আমার উম্মাতের বিপক্ষে অস্ত্র ধরলো এবং ভালো ও খারাপ লোকদের হত্যা করল, মুমিনের কোন পরোয়া করল না এবং প্রতিশ্রুতি ওয়ালার প্রতিশ্রুতি পূরণ করল না। সে আমার থেকে নয় আর আমিও তার থেকে নই।“
-

ব্যাখ্যা

এ হাদীসটির অর্থ হলো, যে জামাত এমন একজন ইমামের নেতৃত্বে একমত হয়েছেন যিনি তাদের যাবতীয় কর্ম আঞ্জাম দেন, তাদের বাক্যকে একত্র রাখেন এবং দুশমনদের থেকে তাদের হিফাযত করেন সে জামাতকে যারা ত্যাগ করল এবং মুসলিমদের যাবতীয় কর্মের অভিভাবকের আনুগত্য থেকে বের হলো আর এ অবস্থায় সে মারা গেল সে যেন জাহিলি মৃত্যু বরণ করল। কেননা জাহিলি যুগের লোকেরা ছিল বিশৃঙ্খল ও ইমামহীন। আর যে ব্যক্তি এমন ঝান্ডার নেতৃত্বে যুদ্ধ করে যার যাবতীয় কার্যক্রম অন্ধ তার কোন কিছুই স্পষ্ট নয়। যেমন, কোন কাওমের জাতি ও বংশের জন্য যুদ্ধ করা, যারা জাতির জন্যে গোস্বা করে অথবা জাতির দিকে আহ্বান করে অথবা জাতিকে সাহায্য করে। এর অর্থ হলো, সে তার মনের চাহিদা পূরণের জন্য তার আক্রোশ মিটানোর জন্য তার কাওমের সহযোগীত করা বা প্রবৃত্তির জন্য যুদ্ধ করে। যে ব্যক্তি উম্মাতের বিপক্ষে যুদ্ধ করে নেককার ও বদকার, নিরাপত্তা প্রাপ্ত ও চুক্তিবদ্ধ, স্বীয় দেশে মুকীম এবং মুসলিম দেশে টেক্সের বিনিময়ে যিম্মী সবাইকে হত্যা করে, সে যা করে তাতে সে কোন পরোয়া করে না, তার পরিণতি ও শাস্তিকে ভয় করে না, নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম তার থেকে মুক্ত।

অনুবাদ: ইংরেজি ফরাসি তার্কিশ উর্দু ইন্দোনেশিয়ান বসনিয়ান রুশিয়ান চাইনিজ ফার্সি ইন্ডিয়ান
অনুবাদ প্রদর্শন
1: আল্লাহর নাফরমানির বাহিরে শাসকদের আনুগত্য করা ওয়াজিব।
2: এ হাদীসটিতে কঠিন সতর্কবাণী রয়েছে তার জন্যে যে মুসলিমদের থেকে বের হয়ে গেল এবং ইমামের আনুগত্য থেকে বের হয়ে গেল এবং মুসলিম জামাত ত্যাগ করল। সে যখন এ অবস্থার উপর মারা গেল সে জাহিলি লোকদের পন্থায় মারা গেল।
3: হাদীসটি প্রমাণ করে যে, যদি কোনো ব্যক্তি জামাত ত্যাগ করে, কিন্তু তাদের বিপক্ষে বিদ্রোহ করেনি এবং তাদের সাথে যুদ্ধ করেনি, আমরা তাকে জামাতে ফিরানো এবং ইমামের আনুগত্যে বাধ্য করার জন্য তার সাথে যুদ্ধ করব না। বরং আমরা তাকে তার অবস্থায় ছেড়ে দেব।
4: আনুগত্য করা এবং জামাতের সাথে থাকার মধ্যে অসংখ্য কল্যাণ, নিরাপত্তা, শান্তি ও অবস্থার বিশুদ্ধতা রয়েছে।