رأى سعد أنَّ له فَضلاً على مَن دُونَه، فقال النبي -صلى الله عليه وسلم-: «هَل تُنْصَرون وتُرْزَقُون إِلاَّ بِضُعَفَائِكُم؟». عن أبي الدرداء عويمر -رضي الله عنه- مرفوعاً: «ابغُونِي الضُعَفَاء؛ فَإِنَّما تُنصَرُون وتُرزَقُون بِضُعَفَائِكُم».
[صحيحان] - [الحديث الأول: رواه البخاري. الحديث الثاني: رواه أبو داود والترمذي والنسائي وأحمد.]
المزيــد ...

সা’দ ধারণা করলেন যে, তার চেয়ে নিম্নশ্রেণীর লোকের উপর তাঁর মর্যাদা রয়েছে। নবী সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়াসাল্লাম বললেন, “তোমাদেরকে দুর্বলদের কারণেই সাহায্য করা হয় এবং রুযী দেওয়া হয়।” আবূ দারদা উআইমির রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু বলেন, আমি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়াসাল্লাম-কে বলতে শুনেছি, “আমার জন্য তোমরা দুর্বলদেরকে খুঁজে আনো, কেননা তোমাদের দুর্বলদের কারণে তোমাদেরকে সাহায্য করা হয় এবং রুযী দেওয়া হয়।”

ব্যাখ্যা

হাদীস দুটি প্রমাণ করে যে, উম্মতের মধ্যে দুর্বলগণই সাহায্য লাভ ও রিযিকের কারণ হয়ে থাকে। যখন কোন মানুষ তাদের লালন পালন করে এবং তাদের প্রতি দয়া করে এবং আল্লাহ তা‘আলা তাদেরকে যা দান করেছে তা থেকে তাদের দান করেন তা অবশ্যই দুশমণের ওপর সাহায্য লাভ ও রিযিক হাসিলের কারণ হবে। কারণ, আল্লাহ তা‘আলা সংবাদ দেন যে, যখন কোন মানুষ তার রবের উদ্দেশ্যে দান করে আল্লাহ অবশ্যই তাকে তার বিনিময় দান করেন। আল্লাহ বলেন, যখন তোমরা কোন কিছু দান কর তিনিই তার বিনিময় দান করেন। আর তিনিই উত্তম রিযিক দাতা। [সূরা সাবা, আয়াত: ৩৯]

অনুবাদ: ইংরেজি ফরাসি স্প্যানিশ তার্কিশ উর্দু ইন্দোনেশিয়ান বসনিয়ান রুশিয়ান চাইনিজ ফার্সি
অনুবাদ প্রদর্শন