عن عمر بن الخطاب -رضي الله عنه- «أنَّه جَاء إِلى الحَجَر الأَسوَدِ، فَقَبَّلَه، وقال: إِنِّي لَأَعلَم أَنَّك حَجَرٌ، لا تَضُرُّ ولا تَنفَعُ، ولَولاَ أَنِّي رَأَيتُ النبيَّ -صلَّى الله عليه وسلَّم- يُقَبِّلُك مَا قَبَّلتُك».
[صحيح.] - [متفق عليه.]
المزيــد ...

উমার ইবনুল খাত্তাব রাদিয়াল্লাহু ‘আনহু হতে বর্ণিত, “তিনি হাজরে আসওয়াদে এসেছেন ও তাকে চুম্বন করেছেন। আর তিনি বললেন, আমি অবশ্যই জানি তুমি একটি পাথর না উপকার করতে পার, আর না অপকার? আমি যদি রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহ আলাইহি ওয়াসাল্লাম-কে তোমাকে চুম্বন করতে না দেখতাম, তাহলে আমি তোমাকে চুম্বন করতাম না”।

ব্যাখ্যা

শরী‘আতের অনুমোদন ছাড়া সরাসরি আল্লাহর ইবাদত হিসেবে কোন স্থান বা সময় ইত্যাদি কখনোই পবিত্র বা সম্মানিত হতে পারে না। এ কারণেই উমার ইবনুল খাত্তাব রাদিয়াল্লাহু আনহু হাজরে আসওয়াদের নিকট এসে তাকে এমন সব হাজীগণের সামনে চুম্বন করলেন যারা এখনো মুর্তি পুজা ও সম্মানের সাথে পরিচিত। আর তিনি বর্ণনা করলেন যে, তিনি এ পাথরকে তার নিজের পক্ষ থেকে চুম্বন বা সম্মান করেননি অথবা এ জন্য করেননি যে তার দ্বারা কোন উপকার বা ক্ষতি হবে। বরং তা করেছেন রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যিনি শরী‘আত প্রণেতা তার পক্ষ থেকে ইবাদত হিসেবে। তিনি তাকে চুম্বন করতে দেখেছেন তাই তার অনুসরণ ও অনুকরণে তাকে চুম্বন করলেন। নিজের মতামত বা আবিষ্কার হিসেবে করেননি।

অনুবাদ: তার্কিশ উর্দু বসনিয়ান চাইনিজ
অনুবাদ প্রদর্শন