عن عائشة -رضي الله عنها-: "أن أم سلمة ذكرت لرسول الله -صلى الله عليه وسلم- كنيسة رأتها بأرض الحبشة وما فيها من الصور، فقال: أولئك إذا مات فيهم الرجل الصالح أو العبد الصالح بنوا على قبره مسجدا، وصوروا فيه تلك الصور، أولئك شرار الخلق عند الله".
[صحيح.] - [متفق عليه.]
المزيــد ...

‘আয়িশাহ রাদয়িাল্লাহু আনহা হতে বর্ণিত, “উম্মু সালামাহ হাবশায় তাঁদের দেখা একটা গির্জা এবং তাতে স্থাপিত বেশকিছু মুর্তির কথা রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামকে বললেন। তারপর তিনি বলেন, তাদের অবস্থা ছিল এমন যে, কোন সৎ লোক বা নেক বান্দা মারা গেলে তারা তার কবরের উপর মাসজিদ বানাতো। আর তার ভিতরে ঐ লোকের মূর্তি-ভাস্কার্য তৈরি করে রাখতো। তারাই আল্লাহর নিকট সবচাইতে নিকৃষ্ট সৃষ্টজীব”।

ব্যাখ্যা

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহুু আলাইহি ওয়াসাল্লাম যখন মুমূর্ষ অবস্থায় তখন উম্মু সালামাহ খৃষ্টানদের গির্জায় মানুষের যে সব মুর্তি দেখেছিলেন তার বর্ণনা দেন। তখন তিনি যে কারণে তারা এ সব মুর্তিগুলো বানাতো তা বললেন। আর তা হলো নেককার বান্দাদের সম্মানের ক্ষেত্রে তাদের মাত্রাতিরিক্ত বাড়াবাড়ি করা। যা তাদের পৌঁছ দিয়েছিল তাদের কবরের ওপর মসজিদ বানানো এবং তাতে তাদের মুর্তি স্থাপন করা দিকে। তারপর তিনি এ ধরনের কর্মের বিধান বর্ণনা করেন, তারা হলো নিকৃষ্ট মানুষ। কারণ, তারা তাদের এ সব কর্মে দুটি অপরাধকে একত্র করেছে: সে দুটি হলো কবরকে মসজিদ বানানো কারণে কবরের ফিতনা। আর হলো মুর্তিকে সম্মান করার ফিতনা যা শির্কের দিকে নিয়ে যায়।

অনুবাদ: ইংরেজি ফরাসি স্প্যানিশ তার্কিশ উর্দু ইন্দোনেশিয়ান বসনিয়ান রুশিয়ান চাইনিজ ফার্সি
অনুবাদ প্রদর্শন